কবিতা

image

                        “” পথিক””
                  ফারহাতুল ইসলাম

             আমি রাস্তার পথিক,
                            রাস্তা আমার ঘর।
              থাকি সেথা সারা বছর,হওক তা,
                               রৌদ, বৃষ্টি, ঝড়।

               ছেড়া ছালা নিয়ে রাস্তায় চলি,
                          আমি যে এক ছোট্র কলি।
            ছোট ছোট পায়ে গুটিগুটি করে
                     পারিদেই সারা শহরের গলি।

         কাগজ থেকে শুরু করে সাথে,
                           বোতল শিশিও কোরাই।
          তাকায় না কেউ চোখটি উঠিয়ে,
                    আমি যে এক অসহায় টুকাই।

            সারাদিন শেষে অনাহারী বেসে,
                                 আবার ফেরত যাই।
             বেচে দিয়ে সব পাইনা দু আনা,
                                 যাতে পেট পুরে খাই।

    আমি অবহেলিত,পরিচয়হহীন  পথিক
                 অলিতে   গলিতে চলি।
                   লোকেরা আমায় তুচ্ছ যে করে বোক  
                করে ফালি ফালি

একবার আমায় দাওগো সুযোগ শিক্ষা
                   অঙ্গনে নাও,
দেখাতে আমি সদা প্রস্তুত,কি না পারি
            যদি যুঝে নিতে চাও!

“” সামিল “”

image

                     “সামিল ”
                   ফারহাতুল ইসলাম
,
,
দেখনি কখনও তারে, যারা ধুকে মরে রাস্তার পারে?

পিঠ ফাটা রৌদ,হাত পাতা থাকে, কখনওবা থাকে থালা,
বোঝে কি সেই দুলাল ধনীরা,
ক্ষুধার যে কত জ্বালা?

তুষার পরছে শৈত্য প্রবাহ,
গায়ে তার নেই বস্ত্র,
দিয়েছ কখন তোমরা তারে,
শীত মেটানোর অস্ত্র?

নেই তার বাড়ি,নেই তার ঘর,
জুটে যদি তবে ফুটপাত,
দিয়েছ কি তারে আস্ত্রয় তুমি,
হতে সে একাত ওকাত?

কচিকাল হতে কাগজ টুকানো,
হয়ত ভিক্ষা শিক্ষা।
অপদার্থ বলে দেওনা এখন,
তারে তোমরা  ধিক্কা?

দিয়েছ কি তারে পথ্য কিছু,
দেখিয়েছ তারে ডাক্তার?
ধুকে ধুকে তার সমাপ্ত হয়,
সারা জীবনের চ্যাপ্টার !

যদি বল চল সামিল হতে চাই,
এসো হাতে হাত মিলাই,
দারিদ্র মাঝে কিছুটা সুখ,
আমরাও এবার বিলাই!